বাড়ি বিনোদন গুরুতর অসুস্থ অভিনেতা টেলি সামাদ

গুরুতর অসুস্থ অভিনেতা টেলি সামাদ

ভালো নেই দেশের অন্যতম জনপ্রিয় অভিনেতা টেলি সামাদ। অনেক দিন ধরেই ভুগছেন বার্ধক্যজনিত নানা অসুখে। গতকাল (২১ ডিসেম্বর) থেকে তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউতে) চিকিৎসাধীন আছেন।
বিষয়টি বাংলা ট্রিবিউনকে নিশ্চিত করেছেন টেলি সামাদের বড় মেয়ে সোহেলা সামাদ কাকলী।

তিনি জানান, প্রকট শ্বাসকষ্ট নিয়ে দুই সপ্তাহ আগে রাজধানীর একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হন টেলি সামাদ। চিকিৎসকরা জানান বুকে ইনফেকশন হয়েছে। রক্তে হিমোগ্লোবিনও কমে যাচ্ছিল। দেখা দিয়েছে আরও কিছু বার্ধক্যজনিত সমস্যা। পরে চিকিৎসকের পরামর্শে ১৯ ডিসেম্বর উন্নত চিকিৎসার জন্য বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয় ৭৯ বছর বয়সী এই অভিনেতাকে।
সোহেলা সামাদ কাকলী বাংলা ট্রিবিউনকে বলেন, ‘এখানে আসার পর প্রথম দুইদিন একটু উন্নতি হয়েছে বাবার। তবে শুক্রবার (২১ ডিসেম্বর) শ্বাসকষ্ট বেড়ে যাওয়ায় আইসিইউতে স্থানান্তর করেন চিকিৎসকরা। জানতে পেরেছি আজ (২২ ডিসেম্বর) বাবার অবস্থা একটু ভালোর দিকে।’
এদিকে সরকারের পক্ষ থেকে কোনও খোঁজ কিংবা সহযোগিতা পেয়েছেন কি না- জানতে চাইলে টেলি সামাদের মেয়ে বলেন, ‘না, এখনও কেউ আমাদের কোনও খোঁজ নেননি। তাছাড়া এগুলোর জন্য দৌড়াতে হয়। এখানে বাবার সঙ্গে আমি ছাড়া তো হাসপাতালে থাকার কেউ নেই। দৌড়ানোরও কেউ নেই। সবার কাছে বাবার জন্য দোয়া চাই।’
কাকলী জানান, ২০১৭ সালে যুক্তরাষ্ট্রে টেলি সামাদের বাইপাস সার্জারি হয়। এরপর থেকে বার্ধক্যজনিত নানা রোখে ভুগছেন এই অভিনেতা।
ঢালিউডের অত্যন্ত শক্তিশালী ও জনপ্রিয় কৌতুক অভিনেতা টেলি সামাদের জন্ম ১৯৪৫ সালের ৮ জানুয়ারি, মুন্সীগঞ্জের নয়াগাঁও এলাকায়। তার আসল নাম আবদুস সামাদ হলেও সিনেমায় এসে হয়ে যান টেলি সামাদ।

টিভি অনুষ্ঠানে গাইছেন টেলি সামাদচার দশকের অভিনয়জীবনে প্রায় ৬০০ চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি।
টেলি সামাদ পড়াশোনা করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলায়। সংগীতেও রয়েছে এই গুণী অভিনেতার পারদর্শিতা। ‘মনা পাগলা’ ছবির সংগীত পরিচালনা করেছেন তিনি। যদিও তিনি দর্শকের কাছে পরিচিতি পান আমজাদ হোসেনের ‘নয়নমণি’ ছবির মাধ্যমে।
নজরুল ইসলামের পরিচালনায় ১৯৭৩ সালের দিকে ‘কার বৌ’ চলচ্চিত্রের মধ্য দিয়ে এই অঙ্গনে পা রাখেন তিনি। তবে দর্শকদের কাছে যে ছবিটির মাধ্যমে সর্বাধিক জনপ্রিয়তা অর্জন করেন সেটি হলো ‘পায়ে চলার পথ’। অভিনয়ের বাইরে ৫০টির বেশি চলচ্চিত্রে তিনি গানও গেয়েছেন।
২০১৫ সালে তার অভিনীত সর্বশেষ ছবি মুক্তি পায় অনিমেষ আইচের ‘জিরো ডিগ্রী’।